ই.ই.ডি.’র প্রধান প্রকৌশলী দেওয়ান মোহাম্মদ হানজালার বিরুদ্ধে নির্মাণ প্রকল্পের দুর্নীতি হাই কোর্টের রুল

0
7

তারা নিউজ ডেস্ক:
দ্বিতীয়দফায় ২০১৫ সালে ১৫ তলা পর্যন্ত কাজ শুরু হয়। ২ বছর কাজ চলার পর হঠাৎ করেই প্রধান প্রকৌশলী দেওয়ান মোহাম্মদ হানজালা ‘ভবনের ভিত্তি দুর্বল’ মর্মে অজুহাত তুলে ১২ তলা পর্যন্ত ভবনটি উর্ধ্বমুখি সম্প্রসারণের মতামত দেন। যদিও ভবনটির ভিত্তি দেওয়া হয়েছে ২০ তলার। পধান প্রকৌশলী ১২ তলার মতামতের সংশোধিত ব্যয় ধরেন ৩৭ কোটি ৪০ লাখ টাকা। মূল দরপত্রের মোজাইকের কথা উল্লেখ থাকলেও দেয়া হয় টাইলস। প্রথম দরপত্রের মোজাইকসহ প্রতিতলার ব্যয় ধরা হয়েছিল ৫ কোটি ২ লাখ টাকা। সে হিসেবে ৬ তলার জন্য ব্যয় হওয়ার কথা ৩০ কোটি ১২ লাখ টাকা। কিন্তু প্রধান প্রকৌশলীর হস্তক্ষেপে দর নির্ধারিত হয় ৭ কোটি টাকার বেশি, ৩৭ কোটি ৪০ লাখ টাকা। এসব অনিয়ম ও দুর্নীতি সম্পর্কে মন্ত্রনালয়ের দফাদফায় চিঠি দিয়ে আপত্তির কথা জানান প্রকল্পের তত্ত¡াবধায়ক প্রকৌশল। তা সত্তে¡ও সরকার কোনো ব্যবস্থা না নেয়ায় এ রিট করা হয়। রুলে আদালত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় একাডেমিক ভবনের উর্ধ্বমুখি সম্প্রসারণের ক্ষেত্রে সংঘটিত দুর্নীতি তদন্তে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না-তাও জানতে চাওয়া হয়েছে। রিটে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ‘দ্য বিল্ডার্স’র মালিক, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের প্রকল্প পরিচালক, প্রধান প্রকৌশলী, শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের সচিবসহ ৭জনকে বিবাদী করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY