টেস্টেও আসছে ফ্রি হিট, সময় বাঁচাতে থাকবে টাইমার!

0
28

তারা নিউজ ডেস্ক:

ক্রিকেটের আইন প্রনেতা সংস্থা এমসিসি ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাউন্সিল টেস্ট ক্রিকেটে নতুন দুই সংযোজনের প্রস্তাব এনেছে। ক্রিকেটের প্রাচীনতম এই ফরম্যাটে নতুন করে দু’টি নতুন নিয়ম সংযোজন করার চিন্তা করছে তারা।

সীমিত ওভারের ক্রিকেটের মতো টেস্ট অতোটা রোমাঞ্চকর নয়! এমনটা দাবী অনেক ক্রিকেট সমর্থকদেরই। তবে বিজ্ঞজনেরা বলেন, টেস্ট ক্রিকেটের মতো রোমান্স আর কোনো ফরম্যাটে নেই। তাই তো টেস্ট ক্রিকেটে রোমান্স বাড়াতে এমসিসি এই ফরম্যাটেও ফ্রি হিট যুক্ত করার কথা ভাবছে।

সাধারণত সীমিত ওভারের ক্রিকেটে কোনো বোলার যদি ‘নো’ বল (ওভার স্টেপ) করলে তার পরিবর্তে বোলারের শাস্তি হিসেবে ব্যাটিং দল ফ্রি হিট পান। যে বলে একমাত্র রান আউট ছাড়া আর কোনো আউট হিসেব করা হয় না। ব্যাটসম্যান ইচ্ছেমত শট খেলতে পারেন। এবার টেস্টেও এমন ফ্রি-হিট চালুর কথা ভাবছে এমসিসি।

টেস্ট ক্রিকেটের আরেকটি সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে স্লো ওভার রেট। বিভিন্ন মেয়াদের শাস্তি দিয়েও এই স্লো ওভার রেট কমানো যাচ্ছে না। গত কয়েক বছরে এটি প্রকট আঁকার ধারণ করলেও এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, গত ১১ বছরের মধ্যে ২০১৮ সালে সবচেয়ে বেশি স্লো ওভার রেট হয়েছে। যা টেস্ট ক্রিকেটে দর্শক সঙ্কটের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এছাড়া ডিসিশন রিভিউ সিস্টেমের (ডিআরএস) কারণেও সময় সময়ক্ষেপন হচ্ছে। তাই টেস্ট ক্রিকেটের গতি বাড়ানোর চেষ্টায় শটক্লক সিস্টেম চালুর কথা ভাবছে এমসিসি। এই নিয়মে স্কোর বোর্ডে একটি ঘড়ি বা টাইমার সংযোজন করা থাকবে।

যেখানে ওভার শেষে ৪৫ সেকেন্ড সময় গণনা করবে এটি। নতুন ব্যাটসম্যান আসার জন্য ৬০ সেকেন্ড আর বোলার পরিবর্তনের জন্য ৮০ সেকেন্ড নির্ধারন করা থাকবে। এই সময়ের মধ্যে কোন দল যদি সেই চাহিদা পূরণ করতে না পারে, তবে তাদের প্রথমবার সতর্ক করে দেয়া হবে।

এরপরেও সময়ক্ষেপণ হলে, প্রতিপক্ষ ৫ রান পেনাল্টি পাবে। এছাড়া আর্থিক জরিমানা তো থাকবেই। ঘড়িতে শূন্য সেকেন্ড হওয়ার আগেই যার যার অবস্থানে দাঁড়িয়ে যেতে হবে। তাই ড্রেসিং রুমে নয় ব্যাটসম্যানকে তৈরি হয়ে ডাগআউটে থাকতে হবে।

LEAVE A REPLY