নতুন ব্যাংকগুলোকে বিশেষ নজরদারিতে না রাখলে আমানত ঘাটতি এবং খেলাপি ঋণের ঝুঁকির আশঙ্কা করছেন বিশ্লেষকদের

0
12

তারা নিউজ ডেস্ক:

৫ম প্রজন্মের নতুন ব্যাংকগুলো দেশের ব্যাংকিংখাতে বাড়তি চাপ সৃষ্টি করবে বলে মনে করেন ব্যাংকাররা। শুরু থেকেই নতুন ব্যাংকগুলোকে বিশেষ নজরদারিতে না রাখলে আমানত ঘাটতি এবং খেলাপি ঋণের ঝুঁকিতে পড়ার আশঙ্কাও করছেন তারা। সেই সঙ্গে আর্থিকখাতের স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে দ্রুত একীভুতকরণ এবং অধিগ্রহণ আইন করারও তাগিদ বিশ্লেষকদের। সাধারণ গ্রাহক কোন ব্যাংকে টাকা রাখবেন তার সিদ্ধান্ত গ্রাহককেও নিতে হবে। ডিবিসি নিউজ।
সারা বাংলাদেশে দেশি-বিদেশি সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে ৫৭টি ব্যাংকের ১০ হাজার ১৫৯টি শাখা রয়েছে। ব্যাংকিংখাতে আমানতের পরিমাণ ছাড়িয়েছে ১০ লাখ কোটি টাকা যার বিপরীতে ঋণ আছে সাড়ে ৮ লাখ কোটি টাকারও বেশি। এই বাস্তবতার মাঝেই অনুমোদন পেয়েছে আরো ৪টি বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক।

ব্যাংকাররা মনে করেন একই বাজারে নতুন এই ব্যাংকগুলো নতুন সংকট সৃষ্টি করবে। শুরুতে ব্যাতিক্রমী ব্যাংকিংয়ের কথা বললেও অতীত অভিজ্ঞতায় দেখা গেছে পরবর্তীতে সবাই গতানুগতিক ব্যাংকিংই করে। এবারের নতুন ব্যাংকগুলোর কাছে তাই বাড়তি কিছু আশা করার নেই।

ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ সভাপতি সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘একই আমানতের ওপর সবারই নজরদারি আছে। সাধারণত ব্যাংকগুলো ৮.৫ বা ৯ শতাংশ সুদ দিচ্ছে। কিন্তু যখন নতুন একটা ব্যাংক আসছে তখন সেই ব্যাংককে কিন্তু বাড়িয়ে দিতে হচ্ছে। ব্যাংকগুলো চালানো কঠিন, কারণ অনেক লোকবল আছে কিন্তু দক্ষ লোকবলের অভাব। সরকার যখন অনুমোদন দেয় তখন কিছু নির্দিষ্ট শর্তাবলী দিয়ে দেয়। তবে ব্যাংকগুলো আসার পরে এগুলো পরিবর্তন করার কথা বলে।’

বাংলাদেশ ব্যাংক পরিচালক ড. জামালউদ্দিন আহমেদ জানান, ‘ নতুন ব্যাংকগুলো নতুন কিছুই নিয়ে আসতে পারবে না। জনগণকে বলা হচ্ছে, তারা যেন ব্যাংকের অবস্থা বুঝে সেখানে আমানত রাখেন। যে তিনটি ব্যাংক নতুন আসবে সেই তিনটির স্পন্সররা সবাই একসাথে ওই একটা ব্যাংক নিয়ে আসতে পারেন। তবে তাতে তারা আসতে রাজি না।’

শুরু থেকেই নতুন ব্যাংকগুলোকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নজরদারিতে রাখার পরামর্শ দেয়ার কথা উল্লেখ করে বিআইবিএম অধ্যাপক ড. প্রশান্ত কুমার ব্যানার্জী বলেন, ‘তারা যদি অভিনব পন্থায় কাজ করে, যেখানে ব্যাংকিং সুবিধাবঞ্চিত মানুষ আছে সেখানে তারা যেতে পারেন। তাদের টিকে থাকার পথ তাদের নিজেদেরকেই বের করতে হবে। এরমধ্য দিয়েই বেরিয়ে আসবে তারা টিকে থাকতে পারবে কি পারবে না।

LEAVE A REPLY