পশ্চিমবঙ্গে সংঘর্ষ অব্যাহত, নিহত বেড়ে ১১

0
282

তারা নিউজ ডেক্স : প্রতিবেশী দেশ ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বিভিন্ন জেলায় পঞ্চায়েত কমিটি গঠন এবং প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে সহিংসতায় এখন পর্যন্ত ১১ জনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। গত ২৫ আগস্ট থেকে শুরু হওয়া এই সহিংসতায় আহত হয়েছে প্রায় অর্ধশতাধিক, এর মধ্যে কয়েকজন পুলিশ সদস্যও রয়েছে।

বুধবার (২৯ আগস্ট) আমডাঙার তারাবেরিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার সকাল থেকে গোটা এলাকা উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। রাজ্যটির ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেস ও বিরোধী সিপিআইএম’এর মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ চলে।

মঙ্গলবার মাঝ রাত পর্যন্ত ৩ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে একজন সিপিআইএম, বাকী দুইজন তৃণমূলের কর্মী বলে জানা গেছে। নিহত সিপিআইএম কর্মীর নাম মোজাফ্ফর পিঁয়াদা (৩৮)। নিহত তৃণমূলীরা হল কুদ্দুস গাইন (৩৪) ও নাসির হালদার (২২)। আহত হয়েছে উভয় পক্ষের প্রায় ১২ জনের মতো। এদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়ায় তৃণমূল ও বিরোধীদের মধ্যে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে খইরুল হক (৩৫) নামে এক তৃণমূর কর্মীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। গুলিবিদ্ধ হয়ে আরো পাঁচজন উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মুর্শিদাবাদ জেলার কাপাসডাঙা মাঠপাড়ায় বোমা বাঁধতে গিয়ে আমু শেখ নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে।

এছাড়াও দক্ষিণ দিনাজপুর, হাওড়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, নদীয়া, কোচবিহারসহ কয়েকটি জেলায় বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা তৈরি হয়। সবমিলিয়ে সহিংসতায় এখন পর্যন্ত প্রাণ গেছে ১১ জনের।

এসব কোন্দল আর প্রাণহানির ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জেলা প্রশাসন ও পুলিশকে কঠোর হাতে মোকাবেলা করার নির্দেশ দিয়েছেন।

LEAVE A REPLY