বর্ষার আগেই মশা নিধনের নির্দেশ হাইকোর্টের

0
7

তারা নিউজ ডেস্ক:

রাজধানীতে মশা নিয়ন্ত্রণে দুই সিটি কর্পোরেশনের নেয়া কার্যক্রমে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহসান এবং বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন। একই সঙ্গে দ্রুত মশা নিয়ন্ত্রণে দুই সিটির নির্বাহী কর্মকর্তাকে (সিইও) নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রাজধানীর ধুলোবালি প্রবণ এলাকাগুলোতে দিনে দুবার পানি ছিটাতে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন কী ব্যবস্থা নিয়েছে, আদৌ পানি ছিটানো হয় কিনা সে বিষয়ে জানতে দুই সিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে বুধবার তলব করেছিলেন হাইকোর্ট। হাইকোর্টের সেই নির্দেশ অনুযায়ী আজ তারা আদালতে উপস্থিত হন।
এসময় আদালত বলেন, এটা আমার, আপনার সবার দেশ। ২০তলা ভবনেও মশা আছে। সামনে বর্ষাকাল আসছে, চিকুনগুনিয়া এবং ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব রয়েছে। আপনারা মশা নিধনে যথাযথ পদক্ষেপ নিন।

আদালতে এ সংক্রান্ত রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার এবিএম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

পরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার এবিএম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার জানান, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ দুই সিটি কর্পোরেশনের সিইও আবদুল হাই ও মোস্তাফিজুর রহমান হাইকোর্টে উপস্থিত হন।

এ সময় আদালত তাদের রাজধানীর ধুলা নিয়ন্ত্রণ ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনার বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দিতে আরও এক মাস সময় দিয়ে এ বিষয়ে আগামী ২৬ জুন পরবর্তী শুনানির দিন ঠিক করেন।

ধুলা, পানি নিষ্কাশন ও মশা নিধনের বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে হাইকোর্ট বলেন, রাজধানীতে অনেক মশা। ঠিকমতো ওষুধ ছিটানো হয় না। যদিও ওষুধ ছিটায় তা দুই নম্বর। মশার কারণে নগরীর শিক্ষার্থীসহ অনেকের সমস্যা হচ্ছে। বিশেষ করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে (ডিএনসিসি) অ্যাম্বাসেডররা থাকেন, বিদেশি ক্রেতারা থাকেন। তাদের যাতে মশার কারণে কোনো সমস্যা না হয় সে বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

LEAVE A REPLY