ভেনেজুয়েলা থেকে কূটনীতিকদের ফিরিয়ে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

0
9

তারা নিউজ ডেস্ক:

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ভেনেজুয়েলায় চলমান সংকটের জেরে দেশটিতে থাকা নিজেদের সব কূটনীতিকদের ফিরিয়ে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

সোমবার (১১ মার্চ) এ ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।

ঘোষণায় বলা হয়েছে, ভেনেজুয়েলায় চলমান ‘সংকটের’ কারণে দেশটি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সব কূটনীতককে ফিরিয়ে নেওয়া হবে। সেদেশের দূতাবাসে মার্কিন কর্মকর্তা থাকলে তা মার্কিন নীতির প্রতিবন্ধকতা হিসেবেও বলা হয়েছে ঘোষণায়।

জানুয়ারি থেকেই ভেনেজুয়েলার রাজধানী কারাকাস থেকে মার্কিন কূটনীতিকদের সরিয়ে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে চলমান আন্দোলনে বিরোধী দলীয় নেতা গুয়ান গুইদোর সমর্থনেই রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। অন্যদিকে মার্কিন কূটনীতিকদের ভেনেজুয়েলা ত্যাগের নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো।

এদিকে ৭ মার্চ থেকে বিদ্যুৎ বিভ্রাট সমস্যায় (ইলেক্ট্রিসিটি ব্ল্যাক আউট) রয়েছেন ভেনেজুয়েলাবাসী। ব্ল্যাক আউটের কারণে এখন পর্যন্ত প্রায় ১৭ জনের প্রাণহানি হয়েছে বলে দাবি করেছেন বিরোধী দলীয় প্রেসিডেন্ট হুয়ান গুইদো। এসব হত্যায় মাদুরোকে ‘খুনি’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন গুইদো।

তবে এ নাশকতার পেছনে যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেছে দেশটির প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো।

এ দায় প্রত্যাখ্যান করে মাইক পম্পেও বলেছেন, আমরা শুধু ভেনেজুয়েলানদের কল্যাণেই আগ্রহী।

ভেনেজুয়েলায় বর্তমানে প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো ও বিরোধীদলের হুয়ান গুইদোর মধ্যে আন্দোলন চলছে। গত ২৩ জানুয়ারি গুইদো নিজেকে ‘অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট’ হিসেবে ঘোষণা দিলে যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানিসহ প্রায় ৫০টি দেশ তাকে সমর্থন করে। অন্যদিকে রাশিয়া, চীনসহ কিছু দেশ এখনও পর্যন্ত মাদুরোর পাশেই রয়েছে।

ভেনেজুয়েলা বর্তমানে বিশাল অর্থনৈতিক সংকটের মুখে রয়েছে। এর মোকাবিলা করতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের কাছে ত্রাণ সহায়তা চাইছেন গুইদো, তবে দেশটিতে কোনো ধরনের ত্রাণ সহায়তা প্রবেশ করতে পারবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মাদুরো।

LEAVE A REPLY