ভোলার চরফ্যাশনে মাছের ঘেরে দেখা মিললো ইলিশের

0
35

তারা নিউজ ডেস্ক:

অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি, মাছের ঘেরে দেখা মিলেছে ইলিশের! এ ঘটনা ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার উপকূলীয় একটি দ্বীপচরের। সমুদ্র উপকূলবর্তী এ দ্বীপের নাম কুকুরী-মুকরি।

সেখানকার একটি মাছের ঘেরে পাওয়া গেছে ৯টি ইলিশ। ঘের সেচ দিতে গিয়ে এসব ইলিশ পেয়েছেন তারা।

শনিবার (২০ মার্চ) ৫টি ইলিশ মাছ পেয়েছেন ঘেরের শ্রমিক ও জেলেরা। এর আগে শুক্রবার ৪টি ইলিশ পান তারা।

এ ঘটনায় পুরো এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ খবর সর্বত্র ছড়িয়ে পড়লে ওই ঘেরটি দেখতে ভীড় জমান উৎসুক জনতা। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনায় নতুন করে সম্ভাবনাও দেখা দিয়েছে। এ নিয়ে নতুন করে গবেষণার চিন্তা করছে মৎস্যবিভাগ।

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের জলোচ্ছাসে ভেসে আসা জোয়ারের পানি নদী থেকে ঘেরে চলে আসায় এমনটি হতে পারে বলে মনে করছেন ঘেরের মালিক ও চর কুকরী-মুকরি ইউপি চেয়ারম্যান হাসেম মহাজন।

তিনি বলেন, ২ বছর ধরে তিনি কুকরী-মুকরি ইউনিয়নের আমিনপুর গ্রামে ২ একর জায়গায় একটি ঘের তৈরি করেন। ২ বছর আগে সেখানে রুই কাতাল, মৃগেল, তেলাপিয়া ও কোড়াল মাছের চাষ শুরু করেন। কিছুদিন ধরে ঘেরে পানি শুকিয়ে যাচ্ছিল। তাই ঘেরে সেচ দিয়ে মাছ বিক্রির সিদ্ধান্ত নেন। শুক্রবার অন্য মাছের সঙ্গে ৭০০/৮০০ গ্রাম ওজনের ৪টি এবং শনিবার একইভাবে সেচ দিতে গেলে আরও ৫টি ইলিশ মাছ ধরা পড়ে। জোয়ারের পানিতে নদী থেকে ইলিশ ঘেরে চলে এসছে বলে মনে হচ্ছে।

ভোলা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এসএম আজহারুল ইসলাম জানান, হয়তো জোয়ারের পানিতে ভেসে আসতে পারে ছোট মাছ, সেগুলো ঘেরে বড় হয়েছে। আমার জানা মতে, ওই ঘেরের নদীর সংযোগ রয়েছে। নিয়মিত পানি আসার কারণে এমন ঘটতে পারে। তবে আমরা সব তথ্য সংগ্রহ করেছি, সেগুলো মৎস্য গবেষণা কেন্দ্রে পাঠাবো। তারা এ নিয়ে গবেষণা করবেন। এতে উপকূলে নতুন করে সম্ভাবনার দ্বার খুলতে পারে।

LEAVE A REPLY