মতিঝিল আইডিয়াল স্কুলে টিউশন ফি বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল করার দাবি জানান অভিভাবক ফোরাম

0
3

তারা নিউজ ডেস্ক:
মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে শিক্ষাবর্ষের মাঝামাঝিতে অর্থাৎ আগামী জুলাই মাস থেকে শিক্ষার্থী প্রতি ২০০/- টাকা হারে টিউশন ফি বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নেয়ায় তীব্র প্রতিবাদ, নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে এবং এই সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির অভিভাবক ফোরাম। আজ বুধবার মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ অভিভাবক ফোরামের চেয়্যারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মোঃ জিয়াউল কবির দুলু ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ রোস্তম আলী এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির বর্তমান গভর্নিং বডি গত ১৮/০৫/২০১৯ইং এ অনুষ্ঠিত সভায় ২০০/- টাকা হারে শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে যা জুলাই ২০১৯ইং থেকে কার্যকর হবে। উক্ত সিদ্ধান্ত অবিলম্বে বাতিল করার দাবি জানিয়ে এ বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন গত জানুয়ারীতে ১০০/- টাকা হারে টিউশন ফি একদফা বৃদ্ধি করা হয় এবং ৫ মাস পরে আরেকবার বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তা কোন ভাবেই কার্যকর করতে দেওয়া হবে না। আন্দোলনের মাধ্যমে প্রতিহত করা হবে। নেতৃদ্বয় বলেন. এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষামন্ত্রণালয়ের নিয়মনীতি ও প্রজ্ঞাপন তোয়াক্কা করছে না কর্তৃপক্ষ। নেতৃদ্বয় বলেন গত এক বছরে অবৈধভাবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রণালয়ের অনুমোদন ছাড়া এবং এনটিআরসিএ-র মাধ্যম ব্যতিরেকে অপ্রয়োজনীয় ১৫৭ জন শিক্ষক এবং ১১২ জন কর্মচারী নিয়োগ দিয়ে স্কুল তহবিলে ঘাটতি দেখানো হচ্ছে। একদিকে অপ্রয়োজনীয় শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগ দিয়ে তহবিলের আর্থিক ঘাটতির দায়ভার নিতে হচ্ছে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদেরকে অন্যদিকে শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগ বাণিজ্যে লাভবান হচ্ছে গর্ভনিং বডির সদস্যগণ।
নেতৃদ্বয় বলেন, শিক্ষামন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী অনুমোদনহীন সেকশন খুলে অতিরিক্ত শিক্ষক নিয়োগের বেতন-ভাতাদি ছাত্র-ছাত্রীরা বহন করবে না এবং টিউশন ফি বৃদ্ধির বিষয়ে অভিভাবকদের সাথে মত বিনিময় করার কথা। কিন্তুএই স্কুলে অর্ধ শতাধিক অনুমোদনহীন সেকশন রয়েছে এবং অভিভাবকদের সাথে এ বিষয়ে মতবিনিময় করা হয়নি। নেতৃদ্বয় বলেন, শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধির বিষয়ে গত ২ বছরে কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেনি প্রতিষ্ঠানটির কর্তৃপক্ষ। বরং অবকাঠামো ও উন্নয়নের নামে বিভিন্ন খাত তৈরি করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের টাকার অপচয় করা হয়েছে। নেতৃদ্বয় উপরোক্ত টিউশন ফি বৃদ্ধির সিদ্ধান্তের বিষয়টি বাতিল করার জন্য মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী মহোদয়ের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

LEAVE A REPLY