শিক্ষক-কর্মচারী অবসর সুবিধা ও কল্যাণ ট্রাস্ট বোর্ড গঠন

0
47

তারা নিউজ ডেস্ক:

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক ও কর্মচারী অবসর সুবিধা বোর্ড এবং বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক ও কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টি বোর্ড এর পরিচালনা পরিষদ গঠন করেছে সরকার।

শিক্ষক ও কর্মচারী অবসর সুবিধা বোর্ড এবং শিক্ষক ও কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টি বোর্ডের পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব।

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক ও কর্মচারী অবসর সুবিধা আইন, ২০০২ এর ধারা ৬ এর বিধান এবং বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক ও কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টি ট্রাস্ট আইন, ১৯৯০ (২০০২ এ সংশোধিত) এর ধারা ৬ অনুযায়ী তিন বছরের জন্য বোর্ড ও পরিষদ গঠন করে বুধবার (১০ এপ্রিল) পৃথক আদেশ জারি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

দুই সংস্থাতেই ভাইস-চেয়ারম্যান হিসেবে রয়েছেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপিচালক। কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক দুই সংস্থায় এক নম্বর সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

শিক্ষক ও কর্মচারী অবসর সুবিধা বোর্ডে সদস্য সচিব হিসেবে রয়েছেন কিশোরগঞ্জ সদরের পৌর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ শরীফ আহমদ সাদী। আর ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ার আমুগঞ্জের বঙ্গবন্ধু কারিগরি ও বাণিজ্যিক কলেজের অধ্যক্ষ মো. শাজাহান আলম সাজু কল্যাণ ট্রাস্টি বোর্ডে সদস্য সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

শিক্ষক-কর্মচারীদের কল্যাণ, অবসর সুবিধাসহ নানাবিধ কাজ করে থাকে এই দুই সংস্থা। প্রায় তিন মাস আগে পরিচালনা পর্ষদের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়।

শিক্ষক ও কর্মচারী অবসর সুবিধা বোর্ডের অন্য সদস্যরা:
মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন), মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের উপসচিব (বেসরকারি মাধ্যমিক-৩), জনপ্রশাসনের উপসচিব বা তদূর্ধ্ব পর্যায়ের একজন কর্মকর্তা, অর্থ বিভাগের উপসচিব বা তদূর্ধ্ব পর্যায়ের একজন কর্মকর্তা।

এছাড়া কুষ্টিয়া সদরের ঝাউদিয়া মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ নুরজাহান শারমীন, রাজধানীর হাবিবুল্লাহ বাহার কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের সহকারী অধ্যাপক মো. নাজিম উদ্দিন তালুকদার, কলাবাগান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মোস্তফা কামাল, সবুজবাগের ধর্মরাজিক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অনুপম বড়ুয়া, পল্লবীর বঙ্গবন্ধু বিদ্যানিকেতনের প্রধান শিক্ষক মো. শাহে আলম, নরসিংদীর লঅখপুর কে ইউ ফাজিল ডিগ্রি মাদরাসার অধ্যক্ষ নজুরুল ইসলাম, পাবনা সদরের মালিগাছা মজিদপুর দাখিল মাদরাসার সুপার মো. তেলায়াত হোসাইন খান, ফরিদপুরের ভাঙ্গার ইকামতে দ্বীন ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ আবু ইউসুফ, গাজীপুরের শ্রীপুর কারিগরি কলেজের অধ্যক্ষ একেএম মোকেসেদুর রহমান, বগুড়া শেরপুরের সালফা টেকনেক্যিাল স্কুল অ্যান্ড বিএম কলেজের ট্রেড-ইন্সট্রাকটর রামচন্দ্র পাল, রাজধানীর লালবাগের হাজী সেলিম ডিগ্রি কলেজের অফিস সহায়ক মো. শাহজাহান খান ও মতিঝিল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অফিস সহায়ক মো. সিদ্দিকুর রহমান এবং যাত্রাবাড়ীর শেখদী আব্দুল্লাহ মোল্লা স্কুল অ্যান্ড কলেজের অফিস সহায়ক মো. হুমায়ুন কবির সদস্য হিসেবে থাকবেন।

শিক্ষক ও কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টি বোর্ডের অন্য সদস্য সদস্য রয়েছেন— মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন), মাধ্যকি ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের উপসচিব (কলেজ-২), জনপ্রশাসনের উপসচিব বা তদূর্ধ্ব পর্যায়ের একজন কর্মকর্তা, অর্থ বিভাগের উপসচিব বা তদূর্ধ্ব পর্যায়ের একজন কর্মকর্তা।

এছাড়াও চাঁদপুরের পুরান বাজার ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ রতন কুমার মজুমদার, ঢাকার খিলগাঁও মডেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের মার্কেটিং বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক সৈয়দ মো. ফজলুর রহমান, সিদ্ধেশ্বরী কলেজের মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. মিজানুর রহমান মজুমদার, বাড্ডা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন, ঢাকা বিটিসিএল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মজিবুর রহমান বাবুল, পল্লবীর বঙ্গবন্ধু বিদ্যানিকেতনের সিনিয়র শিক্ষক মো. শফিকুল আলম, বাসাবো নূরে মোহাম্মদীয়া (সা.) হাফিজিয়া আলিম মাদরাসার অধ্যক্ষ মাহবুবুর রহমান, চট্টগ্রামের ছিপাতলী গাউছিয়া মুইনিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল ফরাহ মো. ফরিদ উদ্দীন, ঢাকা ডেমরার ডগাইর দারুচ্ছুন্নাত ফাজিল মাদরাসার প্রভাষক মো. হারুন অর রশিদ, রামপুরার মহানগর কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. সলিমউল্লাহ সেলিম, মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী সোনারং বহুমুখী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের অফিস সহায়ক মো. মুহিবুর রহমান, ঢাকার কমলাপুর শেরে বাংলা রেলওয়ে স্কুল অ্যান্ড কলেজের অফিস সহায়ক এম আরজু সদস্য হিসেবে রয়েছেন।

LEAVE A REPLY